Legal Jokes

(Collected from different sources and not to humiliate or disgrace any one rather to make fun only).

 

Q: How does an attorney sleep?
A: First he lies on one side, then he lies on the other.

Q: How many lawyer jokes are there?
A: Only three. The rest are true stories.

Q: How many lawyers does it take to screw in a light bulb?
A: Three, One to climb the ladder. One to shake it. And one to sue the ladder company.

Q: What do dinosaurs and decent lawyers have in common?
A: They're both extinct.

Q: What's the difference between a lawyer and a liar?
A: The pronunciation.

Q: Why does the law society prohibit sex between lawyers and their clients?
A: To prevent clients from being billed twice for essentially the same service.

Q: Why are lawyers like nuclear weapons?
A: If one side has one, the other side has to get one. Once launched, they cannot be recalled. When they land, they screw up everything forever.

Q: What do lawyers and sperm have in common?
A: One in 3,000,000 has a chance of becoming a human being.

__________________________________________________________

A fox may steal your hens, Sir,
A whore your health and pence, Sir,
Your daughter rob your chest, Sir,
Your wife may steal your rest, Sir,
A thief your goods and plate.
But this is all but picking,
With rest, pence, chest and chicken;
It ever was decreed, Sir,
If lawyer's hand is fee'd, Sir,
He steals your whole estate.

- John Gay (1685-1732), English dramatist. Peachum, in The Beggar's Opera, act 1, sc. 9, Air 11.

----------------------------------------------------------------------------------------------------

A Dublin lawyer died in poverty and many barristers of the city subscribed to a fund for his funeral. The Lord Chief Justice of Orbury was asked to donate a shilling. "Only a shilling?" said the Justice, "Only a shilling to bury an attorney? Here's a guinea; go and bury 20 more of them."

------------------------------------------------------------------------------------------

A lawyer and a blonde are sitting next to each other on a long flight from LA to NY. The lawyer leans over to her and asks if she would like to play a fun game. The blonde is tired and just wants to take a nap, so she politely declines and rolls over to the window to catch a few winks. The lawyer persists, saying that the game is really easy and a lot of fun. He explains how the game works: "I ask you a question, and if you don't know the answer, you pay me, and visa-versa." Again, she politely declines and tries to get some sleep. The chauvinistic lawyer figures that since his opponent is a blonde he will easily win the match, so he makes another offer:

"Okay, how about this "If you don't know the answer you pay me only $5, but if I don't know the answer, I will pay you $50." This catches the blonde's attention and, figuring that there will be no end to this torment unless she plays, she agrees to play the game. The lawyer asks the first question. "What's the distance from the earth to the moon?" The blonde doesn't say a word, reaches in to her purse, pulls out a five-dollar bill, and hands it to the lawyer. Now, it's the blonde's turn. She asks the lawyer, "What goes up a hill with three legs, and comes down with four?"

The lawyer looks at her with a puzzled look. He takes out his laptop computer and searches all his references. He taps into the Airphone with his modem and searches the Net and even the Library of Congress. Frustrated, he sends E-mails to all his coworkers and friends he knows. All to no avail. After over an hour, of searching for the answer he finally gives up. He wakes the blonde and hands her $50.

The blonde politely takes the $50 and turns away to get back to sleep. The lawyer, who is more than a little frustrated, wakes the blonde and asks, "Well, so what IS the answer?" Again without a word, the blonde reaches into her purse, hands the lawyer $5, and goes back to sleep.

The Madam opened the brothel door to see a frail, elderly gentleman. "Can I help you?" the madam asked.

"I want Natalie," the old man replied.

"Sir, Natalie is one of our most expensive ladies, perhaps someone else..."

"No, I must see Natalie." Just then Natalie appeared and announced to the old man that she charges $1,000 per visit. Without blinking, the man reached into his pocket and handed her ten $100 bills. The two went up to a room for an hour, whereupon the man calmly left.

The next night he appeared again demanding to see Natalie. Natalie explained that no one had ever come back two nights in a row and that there were no discounts...it was still $1,000 a visit. Again the old man took out the money, the two went up to the room and an hour later, he left.

When he showed up the third consecutive night, no one could believe it. Again he handed Natalie the money and up to the room they went. At the end of the hour Natalie questioned the old man: "No one has ever used my services three nights in a row. Where are you from?"

The old man replied, "I'm from Philadelphia."

"Really?" replied Natalie. "I have family who lives there."

"Yes, I know," said the old man. "Your father died, and I'm your sister's attorney. She asked me to give this $3,000 to you."

Taking his seat in his chambers, the judge faced the opposing lawyers.

"So," he said, "I have been presented, by both of you, with a bribe."

Both lawyers squirmed uncomfortably. "You, attorney Leon, gave me $15,000. And you, attorney Campos, gave me $10,000."

The judge reached into his pocket and pulled out a check. He handed it to Leon. "Now then, I'm returning $5,000, and we're going to decide this case solely on its merits!"



A lawyer went duck hunting for the first time in Texas. He shot and dropped a bird, but it fell into a farmer's field on the other side of the fence. As the lawyer climbed over the fence, an elderly farmer drove up on his tractor and asked him what he was doing.
The litigator responded, "I shot a duck, it fell into this field, and now I'm going to retrieve it."
The old farmer replied, "This is my property and you are not coming over here."
The indignant lawyer said, "I am one of the best trial attorneys in the U.S. and if you don't let me get that duck, I'll sue you and take everything you own."
The old farmer smiled and said, "Apparently, you don't know how we do things in Texas. We settle small disagreements like this with the Texas Three-Kick Rule."
The lawyer asked, "What is the Texas Three-Kick Rule?"
The Farmer replied, "Well, first I kick you three times and then you kick me three times, and so on, back and forth, until someone gives up." The attorney quickly thought about the proposed contest and decided that he could easily take the old codger. He agreed to abide by the local custom.
The old farmer slowly climbed down from the tractor and walked up to the city feller. His first kick planted the toe of his heavy work boot into the lawyer's groin and dropped him to his knees. His second kick nearly wiped the man's nose off his face. The barrister was flat on his belly when the farmer's third kick to a kidney nearly caused him to give up.
The lawyer summoned every bit of his will and managed to get to his feet and said, "Okay, you old coot! Now, it's my turn!"
The old farmer smiled and said, "No, I give up. You can have the duck."

 

There was a young couple very much in love. On the night before they were to be married, both were killed in an automobile accident. They found themselves at the pearly gates of heaven being escorted in by St. Peter. After a couple of weeks in heaven, the prospective groom took St. Peter aside and said, "St. Peter, my fiancee and I are very happy to be in heaven, but we miss very much the opportunity to have our wedding vows celebrated. Is it possible for people in heaven to get married?"
St. Peter looked at him and said, "I'm sorry, I've never heard of anyone in heaven wanting to get married. I'm afraid you'll have to talk to the Lord God Almighty about that. I can get you an appointment in two weeks from Wednesday."
Come the appointed day, the couple was escorted by the guardian angels into the presence of the Lord God Almighty, where they repeated the request. The Lord looked at them solemnly and said, "I tell you what; wait a year and if you still want to get married, come back and we will talk about it again."
A year went by and the couple, still very much wanting to get married, came back. Again, the Lord God Almighty said, "I'm sorry to disappoint you but you must wait another year, and then I will consider your request."
This happened year after year, for ten years. Each time they reasserted their yearning to be married; each time God put them off for another year. In the tenth year, they came before they Lord God Almighty to ask again. This time the Lord answered, "Yes, you may marry! This Saturday at 2:00 p.m. We will have a beautiful ceremony in the main chapel. The reception will be on me!"
The wedding went off without a hitch. The bride looked beautiful. The Buddha did the flower arrangements for which Moses wove simple yet elegant baskets. Jesus prepared the fish course. All of heaven's denizens attended, and a good time was had by all.
Tragically, but perhaps inevitably, within a few weeks, the newlyweds realized that they had made a horrible mistake. They simply couldn't stay married to one another. So they made another appointment to see the Lord God Almighty. Groveling and frightened, they asked if they could get a divorce.
The Lord heard their request, looked at them, and said, "Look, it took us TEN YEARS to find a priest up here in heaven. Do you have any idea how long it'll take us to find a lawyer?"

NASA was interviewing professionals to be sent to Mars. Only one could go and couldn’t return to Earth.
The first applicant, an engineer, was asked how much he wanted to be paid for going. “A million dollars,” he answered, “because I want to donate it to M.I.T.”
The next applicant, a doctor, was asked the same question. He asked for $2 million. “I want to give a million to my family,” he explained, “and leave the other million for the advancement of medical research.”
The last applicant was a lawyer. When asked how much money he wanted, he whispered in the interviewer’s ear, “Three million dollars.”
“Why so much more than the others?” asked the interviewer.
The lawyer replied, “If you give me $3 million, I’ll give you $1 million, I’ll keep $1 million, and we’ll send the engineer to Mars.”

Two physicians boarded a flight out of Seattle. One sat in the window seat, the other sat in the middle seat. Just before takeoff, an attorney got on and took the aisle seat next to the two physicians.
The attorney kicked off his shoes, wiggled his toes and was settling in when the physician in the window seat said," I think I'll get up and get a coke."
"No problem," said the attorney, "I'll get it for you."
While he was gone, one of the physicians picked up the attorney's shoe and spat in it.
When he returned with the coke, the other physician said, "That looks good, I think I'll have one too."
Again, the attorney obligingly went to fetch it and while he was gone, the other physician picked up the other shoe and spat in it. The attorney returned and they all sat back and enjoyed the flight. As the plane was landing, the attorney slipped his feet into his shoes and knew immediately what had happened.
"How long must this go on?" he asked. "This fighting between our professions? This hatred? This animosity? This spitting in shoes and pissing in cokes?"

 

A guy phones a law office and says: "I want to speak to my lawyer."
The receptionist replies "I'm sorry but he died last week."
The next day he phones again and asks the same question. The receptionist replies "I told you yesterday, he died last week."
The next day the guy calls again and asks to speak to his lawyer. By this time the receptionist is getting a little annoyed and says "I keep telling you that your lawyer died last week. Why do you keep calling?"
The guy says, "Because I just love hearing you say that."

One afternoon a wealthy lawyer was riding in the back of his limousine when he saw two men eating grass by the roadside. He ordered his driver to stop and he got out to investigate.
"Why are you eating grass?" he asked them.
"We don't have any money for food," the poor man replied.
"Oh, come along with me then," said the lawyer.
"But sir, I have a wife with six children," the second man answered.
"Bring them as well."
They all climbed into the limousine - no easy task - and one of the poor fellows said, "Sir, you are too kind. Thank you for taking all of us with you."
"No problem," said the lawyer, "The grass in my yard is about two feet tall."

"And God said: 'Let there be Satan, so people don't blame everything on Me. And let there be lawyers, so people don't blame everything on Satan.'"
- Pete Luchini


A doctor vacationing on the Riviera met an old lawyer friend and asked him what he was doing there.
The lawyer replied, "Remember that lousy real estate I bought? Well, it caught fire, so here I am with the fire insurance proceeds. What are you doing here?"
The doctor replied, "Remember that lousy real estate I had in Mississippi? Well, the river overflowed, and here I am with the flood insurance proceeds."
The lawyer looked puzzled. "Gee," he asked, "How do you start a flood?"


A young lawyer, defending a businessman in a lawsuit, feared the worst. He asked a senior partner whether he ought to send the judge a box of cigars.
"The judge is an honorable man," the horrified senior partner exclaimed. "If you do, I guarantee you'll lose the case."
The judge eventually ruled in favor of the young lawyer's client.
"Aren't you glad you didn't send those cigars?" the senior partner asked.
"I did send them," the young lawyer answered, "I just enclosed the opposition's business card."



An elderly patient needed a heart transplant and discussed his options with his doctor. The doctor said, "We have 3 possible donors; the 1st is a young, healthy athlete who died in an automobile accident, the 2nd is a middle-aged businessman who never drank or smoked and who died flying his private jet. The 3rd is an attorney who died after practicing law for 30 years. Which do you want?"
"I'll take the lawyer's heart," said the patient.
After a successful transplant, the doctor asked the patient why he had chosen the donor he did. "It was easy," said the patient, "I wanted a heart that hadn't been used."


Three lawyers and three engineers are traveling by train to a conference. At the station, the three lawyers each buy tickets and watch as the three engineers buy only a single ticket. "How are three people going to travel on only one ticket?" asked one of the three lawyers. "Watch and you'll see," answers one of the engineers. They all board the train. The lawyers take their respective seats but all three engineers cram into a restroom and close the door behind them. Shortly after the train departed, the conductor comes around collecting tickets. He knocks on the restroom door and says, "Ticket, please." The door opens just a crack and a single arm emerges with a ticket in hand. The conductor takes it and moves on. The lawyers saw this and agreed it was quite a clever idea.
So after the conference, the lawyers decide to copy the engineers on the return trip and save some money. When they get to the station, they buy a single ticket for the return trip. To their astonishment, the engineers don't buy a ticket at all. "How are you going to travel without a ticket," asks one perplexed lawyer. "Watch and you'll see," says one of the engineers. When they board the train the three lawyers cram into a restroom and the three engineers cram into another one nearby. The train departs. Shortly afterward, one of the engineers leaves his restroom and walks over to the restroom where the lawyers are hiding. He knocks on the door and says, "Ticket, please."
- from Dave Partee



The Godfather, accompanied by his attorney, walks into a room to meet with his accountant. The Godfather asks the accountant, "where's the three million bucks you embezzled from me?"
The accountant doesn't answer.
The Godfather asks again, "where's the three million bucks you embezzled from me?"
The attorney interrupts, "Sir, the man is a deaf-mute and cannot understand you, but I can interpret for you."
The Godfather says, "well, ask him where the @#!* money is."
The attorney, using sign language, asks the accountant where the three million dollars is.
The accountant signs back, "I don't know what you're talking about."
The attorney interprets to the Godfather, " He doesn't know what you're talking about "
The Godfather pulls out a pistol, puts it to the temple of the accountant, cocks the hammer and says, "Ask him again where the @#!* money is!"
The attorney signs to the accountant, "He wants to know where it is!"
The accountant signs back, "Okay! Okay! The money's hidden in a suitcase behind the shed in my backyard!"
The Godfather says, "Well, what did he say?"
The attorney interprets to the Godfather, "He says that you don't have the guts to pull the trigger."



Many years ago, a junior partner in a firm was sent to a far-away state to represent a long-term client accused of robbery. After days of trial, the case was won, the client acquitted and released. Excited about his success, the attorney telegraphed the firm: "Justice prevailed." The senior partner replied in haste: "Appeal immediately."


A housewife, an accountant and a lawyer were asked "How much is 2+2?"
The housewife replies: "Four!".
The accountant says: "I think it's either 3 or 4. Let me run those figures through my spreadsheet one more time."
The lawyer pulls the drapes, dims the lights and asks in a hushed voice, "How much do you want it to be?"

A man went to a brain store to get some brain for dinner. He sees a sign remarking on the quality of professional brain offered at this particular brain store. So he asks the butcher: "How much for Engineer brain?"
"3 dollars an ounce."
"How much for <other generic profession> brain?"
"4 dollars an ounce."
"How much for lawyer brain?"
"100 dollars an ounce."
"Why is lawyer brain so much more?"
"Do you know how many lawyers you need to kill to get one ounce of brain?"



A lawyer died and arrived at the pearly gates. To his dismay, there were thousands of people ahead of him in line to see St. Peter. To his surprise, St. Peter left his desk at the gate and came down the long line to where the lawyer was, and greeted him warmly. Then St. Peter and one of his assistants took the lawyer by the hands and guided him up to the front of the line, and into a comfortable chair by his desk. The lawyer said, "I don't mind all this attention, but what makes me so special?"
St. Peter replied, "Well, I've added up all the hours for which you billed your clients, and by my calculation you must be about 193 years old!"


A woman and her little girl were visiting the grave of the little girl's grandmother. On their way through the cemetery back to the car, the little girl asked, "Mommy, do they ever bury two people in the same grave?"
"Of course not, dear." replied the mother, "Why would you think that?"
"The tombstone back there said 'Here lies a lawyer and an honest man.'"


For three years, the young attorney had been taking his brief vacations at this country inn. The last time he'd finally managed an affair with the innkeeper's daughter. Looking forward to a exciting few days, he dragged his suitcase up the stairs of the inn then stopped short. There sat his lover with an infant on her lap! "Helen, why didn't you write when you learned you were pregnant?" he cried. "I would have rushed up here, we could have gotten married, and the baby would have my name!"
"Well," she said, "when my folks found out about my condition, we sat up all night talkin' and talkin' and decided it would be better to have a bastard in the family than a lawyer."



God decided to take the devil to court and settle their differences once and for all. When Satan heard this, he laughed and said, "And where do you think you're going to find a lawyer?"



A Russian, a Cuban, an American and a Lawyer are in a train. The Russian takes a bottle of the Best Vodka out of his pack; pours some into a glass, drinks it, and says: "In Russia, we have the best vodka of the world, nowhere in the world you can find Vodka as good as the one we produce in Russia. And we have so much of it, that we can just throw it away..." Saying that, he open the window and throw the rest of the bottle through it. All the others are quite impressed.
The Cuban takes a pack of Havanas, takes one of them, lights it and begins to smoke it saying: In Cuba, we have the best cigars of the world: Havanas. Nowhere in the world there is so many and so good cigar and we have so much of them, that we can just throw them away...". Saying that, he throws the pack of Havanas through the window. One more time, everybody is quite impressed.
At this time, the American just stands up, opens the window, and throws the Lawyer through it...



A lawyer got married to a woman who had previously been married twelve times. On their wedding night the settled into the bridal suite at their hotel and the bride said to her new groom, "Please promise to be gentle,...I am still a virgin."
This puzzled the groom, since after twelve marriages he thought that at least one of her husbands would have been able to perform. He asked his new bride to explain the phenomenon.
The bride responded...
My first husband was a Sales Representative who spent our entire marriage telling me, in grandiose terms, "It's gonna be great!"
My second husband was from Software Services; he was never quite sure how it was supposed to function, but he said he would send me documentation.
My third husband was from Field Service who constantly said that everything was diagnostically "okay," but he just couldn't get the system up.
My fourth husband was from Educational Services, and he simply said, "Those who can... do; those who can't... teach."
My fifth husband was from the Telemarketing Department who said that he had the orders, but he wasn't quite sure when he was going to be able to deliver.
My sixth husband was an Engineer. He told me that he understood the basic process but needed three years to research, implement, and design a new state-of-the-art method.
My seventh husband was from Finance And Administration. His comments were that he knew how, but he just wasn't sure whether or not it was his job.
My eighth husband was from Standards And Regulations and told me that he was up to the standards but that regulations said nothing about how to do it.
My ninth husband was a Marketing Manager. He said, "I know I have the product, I'm just not sure how to position it!"
My tenth husband was a psychiatrist and all he ever wanted to do was talk about it.
My eleventh husband was a gynecologist and all he ever wanted to do was look at it.
My twelfth husband was a stamp collector and all he ever wanted to do was philatelate. .. God I miss him!
So now I have married a lawyer, I know I'm finally going to get screwed.



A woman shot her husband dead. A preacher who saw the shooting asked, "Woman, why did you shoot your husband?" "Because he was a lawyer and an evil man. He was going to move to Anchorage!" "Woman," said the man of the cloth, "You cannot stop a lawyer from going to Anchorage by shooting him."
- with apologies to Ambrose Bierce

"You're a high-priced lawyer! If I give you $500, will you answer two questions for me?" "Absolutely! What's the second question?"



A surgeon, an architect an a lawyer are having a heated barroom discussion concerning which of their professions is actually the oldest profession. The surgeon says: "Surgery IS the oldest profession. God took a rib from Adam to create Eve and you can't go back further than that."
The architect says: "Hold on! In fact, God was the first architect when he created the world out of chaos in 7 days, and you can't go back any further than THAT!"
The lawyer smiles and says: "Gentlemen, Gentlemen...who do you think created the CHAOS??!!"



An old man was on his death bed. He wanted badly to take all his money with him. He called his priest, his doctor and his lawyer to his bedside. "Here's $30,000 cash to be held by each you. I trust you to put this in my coffin when I die so I can take all my money with me."
At the funeral, each man put an envelope in the coffin. Riding away in a limousine, the priest suddenly broke into tears and confessed that he had only put $20,000 into the envelope because he needed $10,000 for a new baptistery. "Well, since we're confiding in each other," said the doctor, "I only put $10,000 in the envelope because we needed a new machine at the hospital which cost $20,000."
The lawyer was aghast. "I'm ashamed of both of you," he exclaimed. "I want it known that when I put my envelope in that coffin, it held my personal check for the full $30,000."



An Amish man named Smith was injured when he and his horse was struck by a car at an intersection. Smith sued the driver. In court, he was cross-examined by the driver's lawyer:

Lawyer: "Mr. Smith, you've told us all about your injuries. But according to the accident report, you told the investigating officer at the scene that you were not injured at all?"

Smith: Well, let me explain. When the officer arrived at the scene, he first looked at my horse. He said 'Looks like he has a broken leg,' and then he took out his gun and shot the horse. He then came up to me and asked me how I was doing. I of course immediately said "I'm fine!"

 

   A man phones a lawyer and asks, "How much would you charge for just answering three simple questions?"
        The lawyer replies, "A thousand dollars."
        "A thousand dollars!" exclaims the man. "That's very expensive isn't it?"
        "It certainly is," says the lawyer. "Now, what's your third question?"

________________________________________________________________

 

A man who had been caught embezzling millions from his employer went to a lawyer seeking defense. He didn’t want to go to jail. But his lawyer told him, "Don’t worry. You’ll never have to go to jail with all that money.” And the lawyer was right. When the man was sent to prison, he didn’t have a dime.

___________________________________________________________________

One day in Contract Law class, the professor asked one of his better students, "Now if you were to give someone an orange, how would you go about it?"

The student replied, "Here's an orange."

The professor was livid. "No! No! Think like a lawyer!"

The student then recited, "Okay, I'd tell him, 'I hereby give and convey to you all and singular, my estate and interests, rights, claim, title, claim and advantages of and in, said orange, together with all its rind, juice, pulp, and seeds, and all rights and advantages with full power to bite, cut, freeze and otherwise eat, the same, or give the same away with and without the pulp, juice, rind and seeds, anything herein before or hereinafter or in any deed, or deeds, instruments of whatever nature or kind whatsoever to the contrary in anywise notwithstanding..."



The lawyer's son wanted to follow in his father's footsteps, so he went to law school and graduated with honors. Then he went home to join his father's firm.

At the end of his first day at work, he rushed into his father's office and said, "Father, father! In one day I broke the Smith case that you've been working on for so long!"

His father yelled, "You idiot! We've been living on the funding of that case for ten years!"

He was a very keen lawyer, he even named his daughter ‘Sue’.

Whodunit?

Jul, 2 2015 8:59 PM
by Marcel Strigberger

     There is an island in Scotland called Canna.  Its population numbers 26.  It has one store. The other day this store was robbed.  This event actually was Canna's first crime in 50years.

     Let's play Sherlock Holmes.  Whodunit?  Of the 26 inhabitants, let us assume half are children. That leaves 13 possible suspects. 

     There likely is a church.  This would disqualify the minister, and presumably his wife. Of course we must also subtract the storekeeper and his wife. That leaves 9 suspects. 

     There must be a school there with say at least 2 teachers and one principal.  They would never rob the store. The worst they would do if they were annoyed at the storekeeper, would be to give him a detention. This leaves 6 suspects.

     Let us guess who the 6 remaining people are. There are no police on the island, given its crime free history.  But there is likely a financial advisor/insurance salesman.  You find these guys everywhere. Noah probably had one aboard his ark.  He would never hit the store.   After all if he would, he would be removing the owner's means of following his advice. No go. Leaves 5 suspects.

     I am sure the place has a lighthouse. After all can you imagine a Scottish island without a lighthouse? Exactly.  I see Peggy's Cove with a guy in a kilt.  But the lighthouse keeper? No way. Have you ever come across a lighthouse keeper? Exactly. They never leave the lighthouse. 4 to go.

     Being an island, there has to be at least one fisherman.  He would not do it. These guys are too busy catching fish or mending their nets.  Nah.  Leaves 3 suspects.

     There just has to be that mysterious man who runs the dilapidated former motel, sort of the Mr. Bates of Canna.  He might be a suspect but no one will dare go to his house to ask him questions; not even the police, if there were any.  And in any event, he would be too obvious.

     This leaves two people.  They have to be the island's lawyers.  You cannot have one lawyer there as that would create the potential for conflicts of interest.  Oh pshaw! No way Jose. 

     Why would a lawyer pull the heist? He would not even earn professional development credits.

     I believe this crime will go unsolved.  I feel sorry for the storekeeper. Then again, maybe he did not lose anything. Quite likely the financial advisor sold the storekeeper theft insurance.

       Please also visit my personal injury and famly law practice site, www.striglaw.com .  Slip and fall cases in lighthouses welcome.

 

 

An engineer, a physicist, and a lawyer were being interviewed for a position as chief executive officer of a large corporation. The engineer was interviewed first, and was asked a long list of questions, ending with "How much is two plus two?" The engineer excused himself, and made a series of measurements and calculations before returning to the board room and announcing, "Four." The physicist was next interviewed, and was asked the same questions. Before answering the last question, he excused himself, made for the library, and did a great deal of research. After a consultation with the United States Bureau of Standards and many calculations, he also announced "Four." The lawyer was interviewed last, and was asked the same questions. At the end of his interview, before answering the last question, he drew all the shades in the room, looked outside the door to see if anyone was there, checked the telephone for listening devices, and asked "How much do you want it to be?"

 

Following a distinguished legal career, a man arrived at the Gates of Heaven, accompanied by the Pope, who had the misfortune to expire on the same day. The Pope was greeted first by St. Peter, who escorted him to his quarters. The room was somewhat shabby and small, similar to that found in a low grade Motel 6 type establishment. The lawyer was then taken to his room, which was a palatial suite including a private swimming pool, a garden, and a terrace overlooking the Gates. The attorney was somewhat taken aback, and told St. Peter, "I'm really quite surprised at these rooms, seeing as how the Pope was given such small accommodations." St. Peter replied, "We have over a hundred Popes here, and we're really very bored with them. We've never had a lawyer."


An attorney passed on and found himself in heaven, but not at all happy with his accommodations. He complained to St. Peter, who told him that his only recourse was to appeal his assignment. The attorney immediately advised that he intended to appeal, but was then told that he would be waiting at least three years before his appeal could be heard. The attorney protested that a three year wait was unconscionable, but his words fell on deaf ears. The lawyer was then approached by the devil, who told him that he would be able to arrange an appeal to be heard in a few days, if the attorney was willing to change venue to Hell. When the attorney asked why appeals could be heard so much sooner in Hell, he was told, "We have all of the judges."


As Mr. Smith was on his death bed, he attempted to formulate a plan that would allow him to take at least some of his considerable wealth with him. He called for the three men he trusted most his lawyer, his doctor, and his clergyman. He told them, "I'm going to give you each $30,000 in cash before I die. At my funeral, I want you to place the money in my coffin so that I can try to take it with me." All three agreed to do this and were given the money. At the funeral, each approached the coffin in turn and placed an envelope inside. While riding in the limousine to the cemetery, the clergyman said "I have to confess something to you fellows. Brother Smith was a good churchman all his life, and I know he would have wanted me to do this. The church needed a new baptistery very badly, and I took $10,000 of the money he gave me and bought one. I only put $20,000 in the coffin." The physician then said, "Well, since we're confiding in one another, I might as well tell you that I didn't put the full $30,000 in the coffin either. Smith had a disease that could have been diagnosed sooner if I had this very new machine, but the machine cost $20,000 and I couldn't afford it then. I used $20,000 of the money to buy the machine so that I might be able to save another patient. I know that Smith would have wanted me to do that." The lawyer then said, "I'm ashamed of both of you. When I put my envelope into that coffin, it held my personal check for the full $30,000."


A senior lawyer from Dhaka was hired 50 years ago in a case to move before the Court in Faridpur. He was astonished that despite many senior lawyers in Faridpur, he was hired. He charged a lot but asked the clients what the case is? They briefly narrated the facts to the lawyer, sought bail and also mentioned that no bail granted there in Faridpur without bribe. The lawyer took the file and went to Fairdpur before the date of hearing for bail. The clients were disappointed looking at the lawyer as he did not take any preparation or examined papers in the file. The next morning senior lawyer appeared before the Court. He started his arguments and finally told the learned judges, ‘Your Honour, I have two references as stated in page no…… and page no………….. (both tagged) of DLR’ in my favour . The jufge went through the pages and then looked at the lawyer, smiled and asked , Mr. Learned senior, I am impressed with all your arguments and references but I need one more references.’ The lawyer also smiled and sought a short time…After a while, the lawyer came back and told the Judge, Your honour, I have produced one more reference in page no…… of DLR. The judge finally convinced and granted bail.

The local lawyers were astonished and before leaving Faridpur, they humbly requested the learned senior, what was the mystery behind his bail and why both them smiled when the references portion were mentioned?

The Lawyer replied, Oh, yes that’s a mystery… After repeated requests, the senior told that after coming to know the habits of receiving bribe of the judge, he gave two 500 taka as references in DLR. But the judge was not happy, so he wanted another reference. Mentioning this he smiled and when the third 500 taka was given as third reference, the bail was granted…all laughed at the instant wit of the lawyer…

_________________________________________________

 

A judge found his peshkar (B.O.) was saying prayers in the middle of a case hearing…when he repeatedly asked the Peshkar, he did not reply and found him saying prayers…After the hearing, the Judge asked the Peshkar what prayer he was praying at the middle of the day during hearing? The Peshkar told sir, please don’t take otherwise..I am needy…I cannot maintain my family with such a small amount of taka..so when I get extra beyond my expectation as bribe I say more prayers.. Today I got some extra so I said extra prayers….

A person asked a Judge, sir, there are bribes everywhere..even, the B.O’s are taking money while the Courts are conducting their functions…The Judge replied with a short story….He said, he was a lawyer before.. He gave bribe to a Government officer who received the money but left undone and he came to know that he was promoted and transferred. He again gave money for the same works to another person in charge of the works who again received money but before accomplishment he died. He again gave money for the same work to the next person in charge of the work who received money and before accomplishment; he left the country for higher studies. He further gave money to the next person who was in charge of the work. The officer received money and he retired before the act is done. This is happening in government offices. He then told that I gave money four times for a work, all of them received the bribe but did nothing… In that sense, B.O’s are better as they are receiving moneys and doing their jobs with full commitments…

__________________________________________________________________


Jokes in Bangla (Collected)

 

বিয়ে করতে পারব না

প্রেমিক–প্রেমিকার মধ্যে কথা হচ্ছে।
প্রেমিক: আমি বোধ হয় তোমাকে বিয়ে করতে পারব না।
প্রেমিকা: কেন?
প্রেমিক: আমার বাসায় ব্যাপারটা মেনে নেবে না।
প্রেমিকা: কে কে আছে তোমার বাসায়?
প্রেমিক: আমার স্ত্রী আর দুই সন্তান।

- See more at: http://www.ebanglajokes.com/7638#sthash.iyIolPAo.dpuf

 

 

সত্য এবং মিথ্যার মধ্যে পার্থক্য

বলুন দেখি, সত্য এবং মিথ্যার মধ্যে পার্থক্য কী?
সত্য বলে ফেললেই হয়। কিন্তু মিথ্যা বলার পর মনে রাখতে হয়!

- See more at: http://www.ebanglajokes.com/7637#sthash.3nb3ARHm.dpuf

 

 

আলাদা প্রতীক কেন

বলুন তো, ভোটপ্রার্থীরা সব সময় আলাদা আলাদা প্রতীক নেন কেন?
কারণ তাঁরা কখনো একমত হতে পারেন না!

- See more at: http://www.ebanglajokes.com/7636#sthash.JU2kENbC.dpuf

 

 

ঘটা করে বিয়ে আর প্রেম করে বিয়ের মধ্যে পার্থক্য

দুই বন্ধু রনি আর বনির মধ্যে কথা হচ্ছে।
রনি: বল তো, ঘটা করে বিয়ে আর প্রেম করে বিয়ের মধ্যে পার্থক্য কী?
বনি: এটা তো খুবই সোজা।
রনি: আহা, বল না।
বনি: শোন, পার্থক্যটা খুবই সাধারণ। প্রেম করে বিয়ে করলে নিজের প্রেমিকাকে বিয়ে করতে হয়, আর ঘটা করে বিয়েতে অন্যের প্রেমিকাকে বিয়ে করতে হয়।

- See more at: http://www.ebanglajokes.com/7634#sthash.ULdtuwYY.dpuf

 

জামাই হওয়ার উপায়

: তো, তুমি আমাদের মেয়েকে বিয়ে করে আমাদের জামাই হতে চাও?
: আসলে ঠিক তা নয়। তবে বিয়ে না করে অন্য ভাবে জামাই হওয়ার উপায় থাকলে বলতে পারেন।

- See more at: http://www.ebanglajokes.com/6000#sthash.J662dE0p.dpuf

 

 

কোনটা ভালো লাগে?

 

আমাদের পচাদার বউ পচাদাকে জিজ্ঞেস করলো, "আচ্ছা, তোমাকে একটা প্রশ্ন করছি, সত্যি সত্যি উত্তর দেবে?"

বাংলা জোক, চুটকি জোক

পচাদা বললো, "কোন কথাটা আমি তোমাকে মিথ্যা বলি? পুছো তোমার কোশ্চেন!"

এস এম এস জোক, পচাদা জোকা, পচাবৌদি

পচাবৌদি বললো, "আচ্ছা, তোমার কোন জিনিসটা সবচেয়ে বেশী ভালো লাগে? আমার সৌন্দর্য্য, না আমার বুদ্ধি?"

অনাবিল হাসি, সুস্থ জোক, ফ্যামিলি জোক

পচাদা একটা মুচকি হাসি দিয়ে বললো, "আররে, তোমার এই জোক করার অভ্যেসটাই আমার সবচেয়ে ভালো লাগে!"

 

ছাত্রদের সাহস

 

এক ইঞ্জিনিয়ারিং আর মেডিক্যাল কলেজের প্রিন্সিপাল, দুজনের মধ্যে তর্ক হচ্ছিলো যে কার ছাত্রদের সাহস বেশী।

 

মেডিকেল কলেজের প্রিন্সিপাল তাঁর ছাত্রদের ডেকে হাঙরে ভর্তি সমুদ্রের মধ্যে ঝাঁপ মারতে বললেন। ছাত্ররা কোনও প্রশ্ন না করে সোজা ঝাঁপ মেরে দিলো। প্রিন্সিপাল ঘুরে তাঁর বন্ধুকে বললেন, "দেখলে? আমার ছাত্রদের সাহস কতোখানি?"

 

ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের প্রিন্সিপালও তাঁর ছাত্রদের ডেকে হাঙরে ভর্তি সমুদ্রের মধ্যে ঝাঁপ মারতে বললেন। ছাত্ররা সমুদ্রের দিকে একবার তাকিয়ে বললো, "আপনি আমাদের নিজের মতন পাগল ভেবেছেন নাকি?" ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের প্রিন্সিপাল এবার তাঁর বন্ধুকে বললেন, "দেখলে? আমার ছাত্রদের সাহস!"

 

প্রথম অপারেশন

ডাক্তারবাবু জীবনের প্রথম অপারেশন করতে চলেছেন। খুবই উৎকণ্ঠিত। অপারেশন একসময় শেষও হয়ে গেলো এবং রোগীও কিছুক্ষণ বাদেই অক্কা পেলেন।

বাংলা জোক

রোগী মরে যাওয়ার পর ডাক্তারবাবু দেওয়ালে টাঙ্গানো ভগবানের ছবির সামনে গিয়ে হাতজোড় করে, মাথা নীচু করে খুবই ভক্তিভরে বললেন, "হে প্রভু, জগতের প্রাণদাতা, আমার তরফ থেকে এই প্রথম নৈবেদ্য দয়া করে গ্রহণ করুন!"

 

অন্য কথা বলো

মেঘনার প্রেমিক রাহুল প্রচণ্ডভাবে ওয়ার্ক্যাহলিক। এই নিয়ে মেঘনার দুশ্চিন্তার সীমা নেই।

রাহুলের ঘ্যানঘ্যান শুনে প্রচণ্ড চটে গিয়ে মেঘনা একদিন বললো, "দেখ রাহুল, সবসময় তোর অফিসের গল্প শুনতে আমার ভালো লাগে না। অন্য কিছু নিয়ে কথা বল। প্রেম-ভালোবাসার কথা না বলতে চাইলে, অন্ততঃ সেক্সের কথা তো বলতে পারিস।"

রাহুল আমতা-আমতা করে তখন বললো, "মানে, আমাদের অফিসের নতুন টাইপিস্ট মেয়েটার সাথে ইদানীং একটু ইয়ে-ইয়ে খেলছি!" ;)

 

রাঁচিতে জওহরলাল নেহেরু

 

ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহেরু ১৯৪৯ সালে রাঁচির মানসিক হাসপাতাল অর্থাৎ পাগলা গারদ পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। এরপর পাগলা গারদের ভেতরে যা ঘটেছিল, তার জন্য কেউই তৈরী ছিলেন না।

 

নেহেরু সেখানে গিয়ে ডাক্তারদের সাথে কথাবার্তা বলার পর মানসিক রুগীদের ওয়ার্ডগুলো দেখতে হাসপাতালের ভেতরে যান। ভেতরে যাওয়ার পর থেকেই একটা পাগল তাঁকে উত্যক্ত করছিল। শেষে আর থাকতে না পেরে নেহেরু বললেন, "এই পাগলা, তুই জানিস আমি কে? আমি ভারতের প্রধানমন্ত্রী।"

 

পাগলটা এই শুনে হেসে উত্তর দিলো, "হে হে। হয় - হয় - এরকম হয়। প্রথম প্রথম সবাই এরকমই ভাবে। কয়েকদিন এখানে থাক, তারপর সব ঠিক হয়ে যাবে!"

 

আসামীর স্বীকারোক্তি

এক পুলিশ অফিসার নতুন বিয়ে করেছেন। হানিমুনের পর অফিসার আবার চাকরিতে যোগ দিলেন। নতুন বউ খুব সোহাগ করে খাবার বানিয়ে বরের জন্য প্যাক করে দিলেন। দুপুরবেলা ভদ্রমহিলা ফোন করে বরের কাছে জানতে চাইলেন, "হ্যাঁগো, খাবারটা খেয়েছো? খেতে কেমন হয়েছে?"

পুলিস অফিসার আহ্লাদিত হয়ে বললেন, "আরে তোমার বানানো খাবার দারুণ হয়েছে। একটা আসামীর মুখে চেপে ধরতেই গড়গড় করে সব স্বীকার করে ফেললো!"

 

পাগলে কি না করে

পচাদা রোববার সকালে বাড়িতে বসে কাগজ পড়ছে, এমন সময় পচাবৌদি এসে আদুরে গলায় বললো, "হ্যাঁগো, আমি মরে গেলে তুমি কি করবে?"


পচাদা কাগজ থেকে মুখ না উঠিয়েই বললো, "আমিতো পুরো পাগল হয়ে যাবো!"


বৌদি, "তুমি আরেকটা বিয়ে করবে না তো?"



পচাদা এবার গম্ভীরভাবে বললো, "পাগল লোকেরা যেকোনও কিছুই করতে পারে।"

 

নাম বলো

একজন নতুন শিক্ষক তার স্কুলের ছাত্রকে জিজ্ঞেস করলেন, "এই পাখীটার পা দেখো আর এটার নাম বলো।"

ছাত্র বললো, "জানি না স্যার!"

শিক্ষক বললেন, "তুমি একটা গাড়ল, তোমার নাম বলো!"

ছাত্র বললো, "এই দেখো আমার পা, আর আমার নাম বলো!"

 

একদম না

 

একজন লোক লাইব্রেরীতে গিয়ে বললো, "দাদা, আমি আত্মহত্যা করবো। আপনি কি আমাকে আত্মহত্যার ওপর কোনও ভালো বই দিতে পারেন?"

লাইব্রেরিয়ান খুব গম্ভীরভাবে মাথা নেড়ে বললো, "একদম না দাদা, একদম না! আমি খুব ভালো ভাবেই জানি যে আপনি ঐ বইটা আমাকে ফেরত দেবেন না।"

 

ফেল করলে বাবা বলিস না

পচাদার ছেলে তিন বছর ধরে ম্যাট্রিক দিয়েই যাচ্ছে! এদিকে ওর ছোট বোনও হায়ার সেকেণ্ডারিতে পৌঁছে গেছে। শেষে বিরক্ত হয়ে পচাদা এবার পরীক্ষার আগে ওর ছেলেকে বললো, "এবারো যদি তুই পরীক্ষাতে ফেল করিস, তাহলে আমাকে বাবা বলে ডাকবি না!"

যথাসময়ে পরীক্ষা হয়ে গেলো, ফলও বেরোলো।

ছেলে বাড়ি ফেরার পর পচাদা বললো, "কিরে, পরীক্ষার ফল কেমন হলো?"

ছেলে গম্ভীরভাবে বললো, "আঃহ, খালি উল্টোপাল্টা কথা বলো না তো পচাবাবু!"

 

ইন্টারভিউ

চাকরীর ইন্টারভিউ চলছে ...
বস, "আমরা কাউকে চাকরি দেওয়ার ক্ষেত্রে মাত্র দুইটা রুল ফলো করি।"
সান্টা সিং, "কি কি স্যার?"
বস, "আমাদের দ্বিতীয় রুল হচ্ছে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা। আপনি কি এখানে আসার আগে রুমের বাইরে রাখা ম্যাট এ জুতোর তলা মুছে এসেছেন?"
সান্টা সিং, “হ্যাঁ স্যার, হ্যাঁ স্যার!”
বস, "আমাদের প্রথম রুল হলো বিশ্বাসযোগ্যতা এবং আপনার অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে বাইরে কোন ম্যাট ছিলোই না! কাজেই আপনাকে বিশ্বাস করা যাচ্ছে না। আর চাকরীর ব্যাপারটাও ভুলে যান!"

 

বাপের রাস্তা

বনের রাস্তার ঠিক মাঝখানটায় এক সিংহ শুয়ে আছে।
তা দেখে খুবই ভয়ে ভয়ে একটা শেয়াল তার কাছে গিয়ে জিজ্ঞেস করল, "মহারাজ, আপনি এই অবেলায়, রোদের মধ্যে, মাঝরাস্তায় শুয়ে আছেন যে?"
সিংহ কাতরভাবে বললো, "আরে সাধে কি শুয়ে আছি? গুলি লেগেছে উঠতে পারছি না।"
এটা শুনেই শেয়াল জোর গলায় বললো, "তাই বলে তোর বাবার রাস্তা মনে করে শুয়ে থাকবি নাকি? রাস্তা থেকে সরে গিয়ে মর!"

 

নকলিফাই

পরীক্ষায় নকল করে অনেক লোক সফল হয়েছেন। কিন্তু এর উলটোটার উদাহরণও প্রচুর।

 

পরীক্ষায় প্রশ্ন এলো - শাহজাহান সম্বন্ধে দু-লাইনে লেখো।

ক্লাসের ফার্স্টবয় লিখলো, "যুদ্ধে হারিয়া শাহজাহান ভাঙ্গিয়া পড়িতেন না।"

তার ঠিক পেছনে বসে পচাদা লিখলো, "যুদ্ধে হারিয়া শাহজাহান জাঙ্গিয়া পড়িতেন না।"

 

লেখা পড়া

এক ছাত্রী তার প্রাইভেট টিউটরকে বললো, "স্যার, আপনি কি এই পাঁচ বছরে আমার চোখের দিকে তাকিয়ে একবারও বুঝতে পারেন নি যে আমার চোখদুটোতে কি লেখা আছে?"

 

স্যার বললেন, "পাঁচ বছরে এখনো তোমার হাতের লেখাই ঠিকমত বুঝতে পারিনা ... আর চোখ!"

 

প্রতিবেশীর কুকুর

প্রতিবেশীর কুকুরটার চিৎকারে বিরক্ত এক দম্পতি। এক মাঝরাতে বিছানা থেকে উঠেই গেলেন বাড়ির কর্তা। যেতে যেতে বললেন, "অনেক হয়েছে। আজ এর একটা বিহিত করতেই হবে।" 

এই বলেই হনহন করে বেরিয়ে গেলেন তিনি।

কিছুক্ষণ পর ফিরলেন। 

স্ত্রী জিজ্ঞেস করলেন, "কি বিহিত করে এলে, শুনি?"

কর্তা বললেন, "কুকুরটাকে আমাদের বাড়িতে নিয়ে এসেছি। এবার বুঝুক, প্রতিবেশীর কুকুরের চিৎকার কেমন লাগে!"

 

বেয়াদব প্রতিবেশী

থানায় ঢুকেই ভদ্রমহিলা রাগে ফেটে পড়লেন, "ইন্সপেক্টর সাহেব, আমি আমার প্রতিবেশীর বিচার চাই। লোকটা একটা আস্ত বেয়াদব এবং ছোটলোক।"
ইন্সপেক্টর, "কেন? কী করেছে সে?"
ভদ্রমহিলা, "আমি যখনই তার বাড়িতে উঁকি দিই, দেখি সে-ও উঁকি দিয়ে আছে!"

 

ছাত্রজীবনের সবথেকে মজার মুহূর্ত

একজন ছাত্রের জীবনের সবচেয়ে মজার মুহূর্তটা কখন আসে?

 

যখন পরীক্ষায় সে বসে আছে, একটাও প্রশ্নের উত্তর জানেনা, আর পেছন দিক থেকে টিচার এসে বলছেন, "এই তুমি, খাতাটা ঢেকে রাখো। পেছনের ছেলেটা তোমার খাতা থেকে নকল করছে!"

 

জুয়া খেলার জন্য

 

পুলিশ জুয়ার ঠেকে রেড করে এক জুয়াড়িকে ধরে থানায় নিয়ে এলো।
চুটকি, বাংলা জোক
থানায় এসেই জুয়াড়ি বড়বাবুকে জিজ্ঞেস করলো, "স্যার, আমাকে কেনো ধরে আনা হলো জানতে পারি কি?"
এস এম এস জোক
বড়বাবু, "শালা, ন্যাকামো হচ্ছে? জানিস না তোকে জুয়া খেলার জন্য ধরে এনেছি?"
বাংলা জোক, চুটকি
জুয়াড়ি, উল্লসিত হয়ে, "তাহলে স্যার আর দেরী করা হচ্ছে কেনো? তাড়াতাড়ি শুরু করে দিন।"

 

চাঁদে জল নেই

আমাদের পচাদা গেছে সুলভ শৌচালয়ে। শৌচালয়ের ভিতরে ঢোকার পর পচাদার নজরে পড়লো যে সামনের দেওয়ালে কেউ লিখে গেছে - 

"দুনিয়াটা কোত্থেকে কোথায় চলে গেছে, মানুষ চাঁদে পা রেখেছে, আর তুই ... তুই এখনো এখানেই বসে আছিস?"

কাজকর্ম সেরে বেরিয়ে আসার আগে পচাদা ওই লাইনের ঠিক তলায় লিখে দিয়ে এলো,

"চাঁদে গেছিলাম ভাই, কিন্তু ওখানে জল নেই, তাই এখানেই বসে আছি!"

 

ভগবান তৈরী করেছেন

পচাদার ছেলে বিল্টু যেমন দস্যি, তেমনি বিচ্ছু। একদিন দাদুর সাথে বিকেলে পার্কে বেড়াতে বেরিয়েছে। বেশ খানিকক্ষণ পর সে দাদুর কাছে জানতে চাইলো, "আচ্ছা দাদু তোমাকে কে তৈরী করেছেন?" দাদু বললেন, "ভগবান করেছেন দাদাভাই।" বিল্টু এরপর জিজ্ঞেস করলো, "আর আমাকে কে তৈরী করেছেন?" দাদু বললেন, "তোমাকেও ভগবানই তৈরী করেছেন।"

 

এই না শুনে বিল্টু বললো, "ভাগ্যিস, ভগবান এখন আগের চেয়ে অনেক ভালো কাজ শিখে গেছেন।"

 

চেক বাউন্স

আমাদের পচাদা পাড়ার ডাক্তারবাবুকে চেকে ফিজের টাকাটা দিয়ে এসেছিলো।

 

কয়েকদিন পর, ডাক্তারবাবু পচাদাকে দেখতে পেয়ে ডেকে বললেন, "এইযে পচাবাবু, আপনার দেওয়া চেকটা কিন্তু ফেরত এসেছে।"

 

পচাদা বললো, "সেতো আসবেই।" এতে ডাক্তারবাবু আরো রেগে গিয়ে বললেন, "মানে?"

 

পচাদা খুব ঠাণ্ডাভাবে বললো, "আপনার কাছে যে রোগটা সারাতে গেছিলাম, সেটাও তো আবার ফিরে এসেছে।"

 

কোথায় আছো?

 

আমাদের পল্টু হোয়াটস আপে তার বান্ধবীকে মেসেজ দিলো, "হাই, কোথায় আছো?"

 

বান্ধবী উত্তর দিলো, "হ্যাললো! আমি এখন বাবার বিএমডব্লিউ চড়ে ক্লাবে যাচ্ছি। ড্রাইভার আমাকে ক্লাবে ছেড়ে চলে যাবে। ক্লাব থেকে বেরিয়ে আমি মলে শপিং করতে যাবো। তখন তোমায় ফোন করবো। তুমি কোথায়?"

 

পল্টু মেসেজ করলো, "আমি ৪০৩ নম্বর বাসে করে যাচ্ছি। তোমার সিটের ঠিক পেছনেই দাঁড়িয়ে আছি। তুমি টিকিট করো না। আমি তোমার টিকিটও কেটে নিয়েছি।"

 

সরকারী দফতর

 

এক সরকারী দফতরের দরজাতে বড় বড় অক্ষরে লেখা ছিলো, "দয়া করে এখানে শোরগোল করবেন না।"

 

আমাদের পচাদা তার তলায় লিখে দিলো, "করলে আমরা জেগে যাবো!"

 

জীবনের দাম

 

পচাদা পাড়ার আড্ডায় এসেই বললো, "বুঝলি, জীবনের দামটা মরার পরেই বোঝা যায়।"

 

আমাদের অবিশ্বাসী মুখগুলোর দিকে তাকিয়ে আবার বললো, "বিশ্বাস করলি না তো! আচ্ছা ধর, একটা জীবিত মুরগীর দাম বেশী হলে দেড়শো টাকা। এবার মুরগীটা মরার পর যেই চিকেন তন্দুরি বানালি, সেটার দাম হয়ে গেলো সাড়ে-তিনশো টাকা। বুঝলি?"

 

কিচেন থেকে নুন নিয়ে এসো

পচাবৌদি পচাদাকে ডেকে বললো, "হ্যাঁগো, কিচেন থেকে একটু নুনের কৌটোটা নিয়ে এসো।"

 

পচাদা কিচেন থেকে উত্তর দিলো, "এখানে তো নুনের কৌটো নেই।"

 

বৌদি বলে উঠলো, "জানতাম তুমি খুঁজে পাবে না। কোনও কাজই তো ঠিকঠাক করতে পারো না। কিছু করতে বললেই হয়ে গেলো! তাই আমি আগেই নুনের কৌটোটা কিচেন থেকে নিয়ে এসেছিলাম।"

 

পচাদা শুনে "থ" এবং "দ"।

 

ভ্যালেন্টাইনস ডে

 

বিয়ের পাঁচ বছর পরের ভ্যালেন্টাইনস ডে তে পচাদা বৌদির জন্য একতোড়া সাদা গোলাপ নিয়ে বাড়ি ফিরলো।

 

বৌদি অবাক হয়ে পচাদাকে জিজ্ঞেস করলো, "একি, সাদা গোলাপ কেনো? ভ্যালেন্টাইনস ডে তে লোকে তো লাল গোলাপ দেয়।"

 

পচাদা বললো, "শোনো, জীবনে এখন ভালবাসার চেয়ে শান্তিটাই বেশী জরুরী!"

 

ট্র্যাকসুটে গাধা

সান্টা সিং কে একটা গাধা হঠাৎ করে একটা লাথি কষিয়ে ছুটে পালালো!

সান্টাও সাথে সাথে "ও তেরিকা" বলে গাধাটাকে ধরতে পেছন-পেছন ছুটলো!

একটু দূরে গিয়েই সান্টা একটা জেব্রাকে দেখতে পেয়ে সেটাকেই পাকড়াও করলো।

এবার ঐ জেব্রাকে বেদম মার দেওয়া শুরু করে সান্টা বললো, "শাল্লা! ট্র্যাকস্যুট পরে আমাকে ধোঁকা দিবি বলে ভেবেছিলি?"

 

ফোনালাপ

আমাদের পচাদা একটা টেলিফোন বুথের সামনে দশ মিনিট ধরে দাঁড়িয়ে আছে। বুথের ভেতরে একটা লোক ফোনটা ধরে কানে লাগিয়ে রেখেছে, কিন্তু কোন কথাই বলছে না। এদিকে আবার বিলও উঠেই যাচ্ছে।

অধৈর্য্য হয়ে পচাদা শেষপর্যন্ত বলেই ফেললো, "দাদা, কি হলো? এতক্ষণ ধরে দাঁড়িয়ে আছেন, কোন কথাই বলছেন না, বিলও উঠছে, আর আমরাও লাইনে দাঁড়িয়ে বোর হয়ে যাচ্ছি! কেসটা কি?"

লোকটা মাউথপিসের ওপর হাতচাপা দিয়ে বললো, "আরে দাদা, আমি আমার বৌয়ের সাথে কথা বলছি!"

 

হিসেব করা কাকে বলে

একজন এ্যাকচুয়ারি (মানে যারা ইন্স্যুরেন্স পলিসি বানায়) এবং একজন চাষী ট্রেনে করে দিল্লী যাচ্ছিলো। ট্রেনটা একটা বিশাল মাঠের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় মাঠে অনেকগুলো ভেড়া চরতে দেখে এ্যাকচুয়ারি বললো, "এই দেখো, ওখানে ১২৪৮ টা ভেড়া আছে।"

এটা শুনে চাষী অবাক হয়ে বললো, "অসাধারণ! এই ভেড়াগুলোর মালিককে আমি চিনি, তাই বলতে পারছি যে তোমার কথা একশ শতাংশ সত্য! কিন্তু, একটা কথা বলোতো, এত তাড়াতাড়ি তুমি কোন পদ্ধতিতে এতগুলো ভেড়াগুলোকে গুনতে পারলে?"

এ্যাকচুয়ারি বললো, "আরে, এটা তো খুবই সহজ। আমি শুধু ভেড়াগুলোর পা গুনেছি, আর তারপর মোট যোগফলকে চার দিয়ে ভাগ করে দিয়েছি!"

 

লোডশেডিং

আমাদের পচাদার ছেলে গজা দি গ্রেট একদিন স্কুলের হোমওয়ার্ক করে নিয়ে যায় নি। ব্যস, আর যায় কোথায়! ক্লাস টিচার ওকে পাকড়াও করলেন।

টিচার, "হোমওয়ার্ক করোনি কেন?"

গজা, "স্যার, লোডশেডিং ছিলো।"

টিচার, "তা মোমবাতি জ্বালিয়ে নিতে।"

গজা, "স্যার, দেশলাই ছিলো না।"

টিচার, "দেশলাই ছিলো না কেন?"

গজা, "ঠাকুরঘরে রাখা ছিলো স্যার।"

টিচার, "আচ্ছা, ঠাকুরঘর থেকে নিলে না কেনো?"

গজা, "স্নান করিনি, ঠাকুরঘরে ঢুকবো কি করে?"

টিচার, "ওফ! তা স্নান করতে কে বারণ করেছিলো?"

গজা, "জল ছিলো না স্যার।"

টিচার, "জল কেন ছিলো না?"

গজা, "পাম্পের মোটর চলছিলো না স্যার।"

টিচার, এবারে ধৈর্য্যের  শেষ  সীমায় পৌঁছে গিয়ে, দাঁত  কিড়মিড়  করে বললেন, "আরে উল্লুক, মোটরটা কেন  চলছিলো না?"

গজা, "স্যার, আপনাকে তো প্রথমেই বললাম যে লোডশেডিং ছিলো!

 

এক বিহারী ছিলো

একজন বিহারী একটা বাসস্টপে দাঁড়িয়ে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলো। বেশ কিছুক্ষণ পর বাস এলে সে বাসটাতে উঠে পড়লো। বাসে ওঠার পর তো বিহারীবাবুর চক্ষু চড়কগাছ! পুরো বাসটাতে একমাত্র সে নিজে ছাড়া বাকি সব প্যাসেঞ্জারই সর্দার।

একজন একটু বয়স্ক সর্দারজি বিহারীকে বললো, "হ্যাঁরে ভাই, আমাদের কয়েকটা জোক শোনাও তো।"

এবার তো বিহারীর টেনশনে হাত-পা কাঁপতে আরম্ভ করলো। কারন সে যতগুলো জোক জানতো, সবকটাই সর্দারদের ওপর। বেশ কিছুক্ষণ ভাবার পর সে একটা উপায় বের করলো। যে যে জায়গাগুলোয় সর্দার আছে, ঐ জায়গায় সে বিহারী বসিয়ে দেবে বলে ঠিক করলো।

এই ভেবে সে বলতে আরম্ভ করলো, "অমুক শহরে তমুক সময়ে এক বিহারী থাকতো ..."।

এটুকু বলার পরই তার মাথায় সজোরে একটা চাঁটা পড়লো। বিহারী পেছনে তাকিয়ে দেখে যে তার পেছনে দাঁড়িয়ে থাকা সর্দারই তাকে মেরেছে।

বিহারীকে ঘুরে তাকাতে দেখে ঐ সর্দার বেশ রাগতভাবে বললো, "বিহারী কেনো? সব সর্দার কি মরে গেছে?? অ্যাঁ??"

 

চিরদিনের জোক

ছাত্ররা কোন জোকটা আগেও করতো, এখনো করে এবং ভবিষ্যতেও করবেই?
যখন তারা বলে, "অনেক মস্তি করে নিয়েছি বস, কাল থেকে সিরিয়াসলি পড়াশুনো করবো!"

 

প্রণব মুখার্জি ঠিকই বলেছিলেন

প্রণব মুখার্জি একদম ঠিক কথাই বলেছিলেন, যখন এই বছরের প্রথম দিকে এক বিবৃতিতে তিনি জানিয়েছিলেন, "এই বছরে জিডিপি (GDP) বাড়বে।"

আমরা আসলে ওনাকে জিজ্ঞেস করিনি যে জিডিপি-র পুরো মানেটা কি।

এই বছরে জিডিপি-র বৃদ্ধি দেখে আমরা বুঝলাম যে ওটার মানে হলো গ্যাস, ডিজেল আর পেট্রোল। (Gas, Diesel, Petrol)

 

সান্টা বান্টা আর এটিএম পিন

বান্টা সিং এটিএম থেকে টাকা তুলছিলো। সান্টা সিং ঠিক তার পেছনেই লাইনে দাঁড়িয়েছিলো।

বান্টার টাকা তোলা শেষ হওয়ার পর সান্টা বললো, "হাঃ, হাঃ। আমি তোর পাসওয়ার্ড দেখে ফেলেছি! তোর পাসওয়ার্ড হলো চারটে তারা (*)।"

বান্টা সিং বললো, "আব্বে ছাড় ছাড়! হাঃ, হাঃ, হাঃ! তুই শালা একটা ভোঁদড়! তুই পুরো ভুল বলছিস। ওটা চারটে তারা নয়, ১২৫৮।"

 

তাজমহল আর বান্টা সিং

আমাদের বান্টা সিং এর হঠাৎ করে শখ হলো যে সে ইংরেজি শিখবে। যেমন চিন্তা তেমনই কাজ। বান্টা গিয়ে একটা স্পোকেন ইংলিশের কোর্সে ভর্তি হয়ে গেলো।

তিন মাসের কোর্স শেষ হওয়ার পর, ওদের টিচার মৌখিক পরীক্ষা নিচ্ছিলেন।

বান্টা সিং এর পরীক্ষার সময় এলে, টিচার বললেন, "বান্টা সিং, দেখি কতটুকু ইংরেজি শিখলে। সংক্ষেপে ইংরেজিতে তাজমহলের বর্ণনা দাও তো।"

বান্টা সিং সাথে সাথে জবাব দিলো, "স্যার, এটা তো জলের মতন সোজা! Taj Mahal is the greatest erection of a man, for a woman - অর্থাৎ তাজমহল, একজন মহিলার উদ্দেশ্যে পুরুষের নির্মাণ করা সর্বশ্রেষ্ঠ স্থাপত্য।"

কিন্তু, বান্টার ইংরেজিটা যথারীতি একটু গোলমেলে হয়ে গেলো!!

 

স্ত্রীর বিরুদ্ধে এফ আই আর

মিঃ নাইডু সকালবেলাই থানায় গিয়ে হাজির। বড়বাবুকে বললেন যে তিনি নাকি তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ আনতে চান।

বড়বাবু মিঃ নাইডুকে চেয়ারে বসিয়ে ঠাণ্ডা হওয়ার সময় দিয়ে, তারপর বললেন, "তা অভিযোগটা ঠিক কি হবে?"

মিঃ নাইডু, "যেকোনও ছোটখাটো কথা কাটাকাটির মধ্যেও আমার স্ত্রী আমাকে চপ্পল ছুঁড়ে মারে!"

বড়বাবু, "এই অত্যাচার কদ্দিন ধরে চলছে?"

নাইডু, "পাঁচ বছর।"

বড়বাবু, "পাঁচ বছর? আর আপনি এখন কমপ্লেন লেখাতে এসেছেন?"

নাইডু, "কি বলবো স্যার! পাঁচ বছর ধরে প্র্যাকটিস করতে করতে ওর টিপ এখন অব্যর্থ হয়ে গেছে। আজকাল একবারও টার্গেট মিস করে না!"

 

নরকে ফোন কল

 

ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রী সৌজন্য সফরে গেলেন পাকিস্তানে।

পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট অতি আনন্দের সঙ্গে তাঁকে দেখালেন যে তাঁদের দেশের টেলি-কমিউনিকেশনের কেমন প্রভূত উন্নতি হয়েছে। 

ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রী তৎক্ষণাৎ নরকে ডায়াল করে যমরাজের সঙ্গে কিছুক্ষণ বাক্যালাপ করে নিলেন। টেলিফোন বিল উঠল মাত্র ১ টাকা।

 

কিছুদিন পরে, পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট এলেন নয়াদিল্লি। ভারতের প্রধানমন্ত্রী বললেন তাঁরাও টেলি-কমিউনিকেশনে প্রচুর উন্নতি করেছেন।

সঙ্গে সঙ্গে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ডায়াল করলেন দোজখে। কথা বললেন ইবলিশ নামক এক শয়তানের সঙ্গে। কিন্তু সামান্য এক মিনিটের কথায় বিল উঠল ১০০ টাকা।

 

পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট তো অবাক! বললেন, "এটা কি হলো? আপনাদের ভারতে টেলিফোন তো খুবই ব্যয়বহুল!"

ভারতের প্রধানমন্ত্রী সবিনয়ে বললেন, "আপনাদের দেশ থেকে নরক -লোকাল কল। তাই এক মিনিটে মাত্র এক টাকা বিল হয়। কিন্তু আমাদের দেশ থেকে নরকে ফোন করতে হলে আই এস ডি চার্জ দিতে হয়।"

 

সুখী জীবনের রহস্য

একটা বাড়ির বারান্দায় এক বৃদ্ধকে বসে থাকতে দেখে জিজ্ঞেস করলাম, "বাঃ, এই বয়সেও তো আপনি বেশ হাসিমুখে জীবন কাটাচ্ছেন। তা আপনার এই সুখী জীবনের রহস্য কি? আপনি কি খেতে ভালবাসেন বা কিরকম জীবনযাপন করেন?"

বৃদ্ধ বললেন, "আমি রোজ তিন বোতল হুইস্কি খাই। রোজ তিন প্যাকেট সিগারেট খাই। রোজ চর্বিওয়ালা রেডমিট খাই তিন কিলো। ব্যায়াম করি না কোনদিন।"

"বাঃ! বাঃ!! দারুণ ব্যাপার!!!" আমি বিস্ময়ে চমকিত হই। 

জিজ্ঞেস করি, "আপনার বয়স কত?"

বৃদ্ধ বললেন, "আমার বয়স সাঁইত্রিশ বছর।"

 

মন্নু উকিলের বয়স

সুপ্রিম কোর্টের উকিল, এ্যাডভোকেট মন্নু হঠাৎ করে পঁয়তাল্লিশ বছর (৪৫) বয়সে এ্যাকসিডেন্টে মারা গেলো। মারা যাওয়ার পর উকিলবাবু যমদ্বারে গিয়ে পৌছালে, সেখানে বসে থাকা চিত্রগুপ্ত বললেন, "আঃহা! এসো, এসো। তোমার জন্য আমরা অনেক দিন ধরে অপেক্ষা করছি।"

এই কথা শুনে মন্নু অবাক হয়ে বললো, "কি বলছেন? অনেক দিন মানে? আমি তো মাত্র ৪৫ বছর বয়সী! এতো তাড়াতাড়ি আমাকে মরতে হলো কেনো?"

চিত্রগুপ্ত বললেন, "৪৫! তোমার বয়স ৪৫ নয়। তোমার বয়স তো ৮২ বছর।"

মন্নু বললো, "এক মিনিট! আপনি বলছেন যে আমার বয়স ৮২ বছর, তার মানে আপনারা ভুল লোককে ধরে এনেছেন।"

চিত্রগুপ্ত বললেন, "এক মিনিট দাঁড়াও। আমি রেকর্ডটা দেখছি।"

একটু পরে ঘুরে এসে চিত্রগুপ্ত বললেন, "কোন ভুল হয় নি। আমাদের রেকর্ড অনুযায়ী তোমার বয়স ৮২ বছরই। আমি পুরো রেকর্ড আবারও দেখে এলাম। তুমি আজ পর্যন্ত তোমার মক্কেলদের যত ঘন্টা বিলিং করেছো, সেই হিসেবে তোমার বয়স ৮২ বছরের এক দিনও কম নয়।"

 

সিংহ থেকে ইঁদুর

পশুরাজ সিংহ বিয়ে করছে। তাই জঙ্গলে খুব ধুমধাম করে পার্টির আয়োজন করা হয়েছে। সবাই আনন্দে আর উৎসাহে টগবগ করছে। পুরো জঙ্গলের সব জন্তু-জানোয়ারকেই এই পার্টিতে নিমন্ত্রণ করা হয়েছে।

প্যাণ্ডেলের ভেতরে একটা স্পেশ্যাল মঞ্চ করা হয়েছে যেখানে শুধুমাত্র সিংহরাই নাচতে পারবে। হঠাৎ করে বর দেখলো যে ঐ স্টেজে একটা ইঁদুর নাচছে।

এই দেখে খুব অবাক হয়ে বর সিংহ গিয়ে ইঁদুরকে জিজ্ঞেস করলো, "তুমি কি জানো না যে এই স্টেজটা শুধুই সিংহদের জন্য? অন্য কোন জন্তু এই স্টেজে উঠে নাচতে পারবে না।"

ইঁদুরটা এই শুনে বললো, "আমি জানি রে ভাই। খুব ভালোভাবেই জানি। বিয়ের আগে আমিও সিংহই ছিলাম। বিয়ের পর, দেখতেই পাচ্ছো, ইঁদুর হয়ে গেছি।"

 

গাধা, দাদা, বউদি

 

আমাদের পল্টু রাস্তা দিয়ে হেঁটে যেতে যেতে হঠাৎ করে একটা গাধার সামনে আছাড় খেয়ে পড়ে গেলো।

ঠিক ঐসময়েই রাস্তা দিয়ে দুজন মেয়ে যাচ্ছিলো। তারা পল্টুর ঐ অবস্থা দেখে হেসে কুটোপাটি। পল্টুকে খ্যাপানোর জন্য দুজনেই বললো, "কিগো, তোমার দাদার আশীর্বাদ নিচ্ছো না কি?"

পল্টুও সঙ্গে সঙ্গে বলে উঠলো, "হ্যাঁগো বউদি, একদম ঠিক বলেছো।"

 

সান্টা সিং এর বাবা

সান্টা সিং তখন স্কুলে পড়তো। বুঝতেই পারছেন, বেশ কিছুদিন আগের কথা।

santa

স্কুলের টিচার সান্টা সিংকে জিজ্ঞেস করলেন, "বেটা সান্টা, তোমার বাবা কি করেন?"

সান্টা বুক ফুলিয়ে বললো, "স্যার, পাপা এইচডিএফসি-র (HDFC) মালিক।"

টিচার অবাক হয়ে বললেন, "আরে বাহ! তোমার বাবা এইচডিএফসি ব্যাঙ্কের মালিক?"

সান্টা বললো, "না স্যার! হীরালাল দহিবড়ে এ্যাণ্ড ফালুদা সেন্টার এর মালিক।"

 

আমেরিকা আবিষ্কার

 

পচাদার ছেলে গজা একটা বেশ নামকরা ইংরেজি মিডিয়ামের স্কুলে পড়ে।

জোক, দারুণ

একদিন স্কুলে জিওগ্রাফি, মানে ভূগোলের ক্লাসে টিচার গজাকে ডাকলেন। ডেকে বললেন, "গজা, তুমি ঐ ম্যাপের সামনে যাও, আর গিয়ে উত্তর আমেরিকা কোথায় আছে সেটা দেখাও।"

গজা খুব স্মার্টলি ম্যাপের সামনে গিয়ে হাত দিয়ে উত্তর আমেরিকাকে দেখিয়ে বললো, "স্যার, এইতো, উত্তর আমেরিকা ম্যাপের এখানটায় আছে।"

টিচার খুশী হয়ে বললেন, "একদম ঠিক বলেছো গজা! সাবাশ!" তারপর ক্লাসের বাকি ছাত্র-ছাত্রীদের দিকে তাকিয়ে বললেন, "এখন তোমরা বলোতো আমেরিকা আবিষ্কার কে করেছিলেন?"

সব ছাত্র-ছাত্রীরা একসাথে বলে উঠলো, "গজা, স্যার!"

 

আয়ু লম্বা হওয়ার রাস্তা

 

আমাদের পল্টুর নাকি কদিন ধরে শরীরটা খারাপ যাচ্ছে। তাই গতকাল পল্টু ডাক্তারের কাছে গেছিলো। সেখানে যা ঘটেছে, সেটা হুবহু তুলে দিচ্ছি।

 

চেম্বারে ঢোকার সাথে সাথে ডাক্তারবাবু পল্টুকে জিজ্ঞেস করলেন, "আপনার কি হয়েছে?"

পল্টু বললো, "কদিন থেকে শরীরটা ভালো যাচ্ছে না। কেমন জানি দুর্বলও লাগছে।"

ডাক্তার, "আচ্ছা। শুয়ে পড়ুন দেখি। আপনার চেক-আপ করতে হবে।"

চেক-আপ হয়ে যাওয়ার পর ডাক্তার যখন প্রেসক্রিপশন লিখছেন, তখন পল্টু জিজ্ঞেস করলো, "আচ্ছা ডাক্তারবাবু, আমার আয়ু যাতে লম্বা হয়, তার জন্য কোন রাস্তা আছে কি?"

ডাক্তারবাবু, "বিয়ে করেছেন?"

পল্টু, "না।"

ডাক্তার, "বিয়েটা করে ফেলুন।"

পল্টু, "বিয়ে করলে আয়ু লম্বা হবে?"

ডাক্তার, "নাঃ! তবে আয়ু লম্বা হওয়ার ইচ্ছেটাও আর থাকবে না।"

 

স্কুল ছুটি

 

অর্ক স্কুল থেকে অনেক তাড়াতাড়ি বাড়ি চলে এসেছে। ছেলেকে এতো তাড়াতাড়ি বাড়ি ফিরতে দেখে তার মা খুবই অবাক হয়ে গেলেন।

মা ছেলেকে জিজ্ঞেস করলেন, "কিরে, তুই এতো তাড়াতাড়ি স্কুল থেকে চলে এলি যে?"

অর্ক খুব গম্ভীরভাবে বললো, "তার কারণ হলো যে একমাত্র আমিই একটা প্রশ্নের উত্তর দিতে পেরেছি।"

মা আরো অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করলেন, "কোন প্রশ্ন?"

অর্ক, "ক্লাস চলার সময়ে টীচারের দিকে কে ডাস্টারটা ছুঁড়ে মেরেছিলো!"

 

চোর-পুলিশ

 

পথ সুরক্ষা সপ্তাহ চলাকালীন ট্রাফিক পুলিসের ইন্সপেকটর একটা গাড়ি থামিয়ে ড্রাইভারের আসনে বসা ভদ্রলোককে বললেন, "অভিনন্দন! এখন পথ সুরক্ষা সপ্তাহ চলছে, আর আপনিও সিটবেল্ট পরে গাড়ি চালাচ্ছেন। তাই আপনাকে ট্রাফিক পুলিশের পক্ষ থেকে পাঁচ হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়া হলো। তা আপনি এই পুরস্কারের টাকা দিয়ে কি করবেন?"

ড্রাইভার, "এই টাকা দিয়ে আমি নিজের ড্রাইভিং লাইসেন্সটা বানিয়ে নেবো!"

পেছনের সিটে বসে থাকা তার মা সঙ্গে সঙ্গে বললেন, "অফিসার, ওর কথা বিশ্বাস করবেন না। মদ খেলে ও উল্টোপাল্টা কথা বলেই থাকে।"

এবার ওর বাবা বলে উঠলেন, "আমি জানতাম যে চুরির গাড়ি নিয়ে বেশী দূরে যেতে পারবো না!"

ঠিক তখনই পেছনের ডিকির ভেতর থেকে একটা আওয়াজ শোনা গেলো, "ভাই, আমরা বর্ডার ক্রস করে গেছি নাকি?"

 

পদে বিপদ

 

স্যার, "সে গাছ থেকে পড়লো। নরেন, বলতো এটা কোন পদ।"
" "
" "
" "
" "
ছাত্র, "বিপদ স্যার!!"

ট্রাফিক সিগন্যাল

এক মহিলা ট্রাফিক সিগন্যাল ভঙ্গ করে গাড়ি নিয়ে সরে পড়তে চেষ্টা করছিলেন।
পুলিশ হুইসেল বাজিয়ে বললো, "থামুন!"
মহিলা পুলিশকে অনুরোধ করলেন, "আমাকে যেতে দিন। আমি একজন টিচার।"
পুলিশ, "আহ! এই মুহুর্তটার জন্যই সারাজীবন অপেক্ষা করেছি। এখন আপনি খাতায় ১০০ বার লিখুন 'আমি জীবনেও আর কখনো ট্রাফিক সিগন্যাল ভঙ্গ করবো না'!"

খ্যাতি, সম্মান, অর্থ

 

ধনী পরিবারের স্বামী এবং স্ত্রীর মধ্যে কথা হচ্ছে -
gap
স্বামী, "আজ আমার এতো খ্যাতি,সম্মান! আমি জীবনের সবকিছু তোমার সঙ্গে শেয়ার করতে চাই।"
gap
স্ত্রী, "ঠিক আছে সোণা, তাহলে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট দিয়েই শুরু করা যাক!"

দেরী কেনো

টিচার, "তুমি দেরীতে এসেছ কেন?"
ছাত্র, "স্যার, বাবা মা ঝগড়া করছিলো।"
টিচার, "তার সাথে তোমার দেরীতে আসার সম্পর্ক কি?"
ছাত্র, "আমার একপাটি জুতো বাবার হাতে, আর আরেক পাটি জুতো মার হাতে ছিল!"

কতটুকু ভালোবাসো

 

মোরগ মুরগীকে দেখে ডেকে বললো, "এই শোনো!"
মুরগি ঘুরে দাঁড়িয়ে বললো, "আমাকে বলছেন?"
মোরগ, "হ্যাঁ, আমি তোমাকে খুব ভালোবাসি। তোমার জন্য আমি সবকিছু করতে পারি।"
মুরগি একটু হেসে বললো, "সত্যি! তুমি আমার জন্য সবকিছু করতে পারো? তাহলে কষ্ট করে একটা ডিম পেড়ে দেখাও না!"

নামে কি আসে যায়

 

শিক্ষক জিজ্ঞেস করলেন, "এমন একটি পদার্থর নাম বল যেটা বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন নামে রূপান্তরিত হয়।"
ছাত্র, "স্যার, চুল।"
শিক্ষক, "চুল? কিভাবে?"
ছাত্র, "স্যার যেমন ধরুন মাথায় থাকলে চুল, চোখের উপরে থাকলে ভুরু, চোখে থাকলে পাপড়ি, নাকের নিচে থাকলে গোঁফ, ঠোঁট এর নিচে থাকলে দাড়ি, বুকে থাকলে লোম আর ..."
শিক্ষক রেগেমেগে বললেন, "চুপ বেয়াদপ! আর নিচে যাবি না।"

আত্মভোলা

দুই মহিলা এক জায়গায় বসে কথা বলছিলেন।

কথা প্রসঙ্গে প্রথম মহিলা দ্বিতীয় জনকে বললেন, "আমার স্বামী এতই আত্মভোলা যে বাজারে গেলে মাছ কিনবে তো তরকারি ভুলে আসবে। আর তরকারি কিনবে তো মাছ কিনবে না।"

একথা শুনে দ্বিতীয় মহিলা বললেন, "আমার স্বামী তো আর এক কাঠি বেশি। সেদিন বাজার করতে গিয়েছিলাম। সেখানে অফিস যাত্রী স্বামী আমাকে দেখে বললেন, 'কিছু মনে করবেন না ম্যাডাম। আপনাকে যেন আমার পরিচিত মনে হচ্ছে। কোথায় যেনো আপনাকে আগে দেখেছি!'"

মৃত্যুতে আনন্দ

 

পচাদা আর পচাবৌদির মধ্যে ঝগড়া হচ্ছিলো। হঠাৎ করে পচাবৌদি ইমোশনাল হয়ে পড়লো।
বেশ একটু ভারী গলায় বৌদি পচাদাকে বললো, "কখনো ভেবে দেখেছ, আমি একদিন মরে যাব।"
পচাদা জোর গলায় বললো, "আরে না না! তুমি মরে গেলে আমিও যে মারা যাব!"
বৌদি বললো, "কিন্তু কেনো?"
পচাদা উদাসভাবে বললো, "কারণ এত আনন্দ আমি সহ্য করতে পারবো না!"

গাড়ি পার্কিং

 

এক ভদ্রলোক এসে পুলিশকে জিজ্ঞেস করলেন, "দাদা, আমি কি এখানে গাড়িটা পার্ক করতে পারি?"

পুলিশ ভদ্রলোক খুব গম্ভীরভাবে ছোট্ট জবাব দিলেন, "না।"

ভদ্রলোক, ওখানে পার্ক করা বেশ কয়েকটা গাড়ি দেখিয়ে বললেন, "তাহলে এই গাড়িগুলো এখানে কেন?"

পুলিশের আবারো ছোট্ট জবাব, "যারা রেখেছে, তারা কেউ আমাকে জিজ্ঞেস করেনি।"

কথায় কথা বাড়ে

পচাদা পাবলিক টয়লেটে বসে একটু হালকা হচ্ছিলো। হঠাৎ করে পাশের টয়লেট থেকে কথা ভেসে এলো, "কি দাদা, কেমন আছেন?"

পচাদা খুবই অবাক হয়ে বলল, "এইতো, আমি মোটামুটি ভালোই আছি।"

কথার পিঠে আবার কথা ভেসে এলো, "তা এখন কি করছেন?"

পচাদা চিন্তিত হয়ে উত্তর দিল, "এইতো ভাই, কমোড এ বসে আছি।"

পাশের টয়লেট থেকে লোকটা আবারও বললো, "আচ্ছা, আমি কি এখন আসতে পারি?"

পচাদা এবার পুরো ঘাবড়ে গিয়ে বললো, "আরে না না না! প্লিজ, আমি এখন খুবই ব্যস্ত আছি।"

আবার কণ্ঠ শোনা গেল, "আচ্ছা দাদা, আমি আপনাকে ৫-১০ মিনিট পরে আবার ফোন করছি। কোনও একটা আহাম্মক জানি আবার সব কথার উত্তর দিয়ে আমার সাথে ইয়ার্কি মারছে।"

মেশিন নষ্ট

পল্টু বেচারা গরমে কাহিল হয়ে গেছে। আর জল কম খাওয়ায় ওর প্রস্রাবও ঠিকমতো হচ্ছে না। শেষে পল্টু এক ডাক্তারের কাছে গেলো।

পল্টু ডাক্তারের চেম্বারে ঢুকে বললো, "ডাক্তার সাহেব, আমার প্রস্রাবে প্রচণ্ড জ্বালাপোড়া হচ্ছে। আর পরিমাণেও কম হচ্ছে।"

ডাক্তার পল্টুর দিকে তাকিয়ে বললেন, "বাড়ি চলে যান, বাড়ি চলে যান। মেশিন নষ্ট হয়ে গেছে।"

এই শুনে পল্টুর তো হয়ে গেছে। খুব ঘাবড়ে গিয়ে সে ডাক্তারকে বললো, "মানে? আমি কি আর বাঁচবো না ডাক্তারবাবু?"

ডাক্তার একটু অবাক হয়ে বললেন, "আরে ধুর! আপনি কেনো মরবেন মশাই? আমি যে মেশিন দিয়ে পরীক্ষা করবো সেটাই নষ্ট হয়ে গেছে!"

সুখবর

পচাদার ছোটভাই রাজীবদা দু-বছর হল বিয়ে করেছে। রাজীবদা অনেক বছর ধরেই ব্যাঙ্গালোর প্রবাসী।
gap
তো একদিন রাজীবদা কোন খবর না দিয়ে হঠাৎ করে কলকাতায় হাজির। বাড়িতে ঢুকেই রাজীবদা তার মাকে গিয়ে বলছে, "মা, একটা সুখবর আছে! আমরা দুজন থেকে তিন জন হয়ে গেছি।"
gap
মা খুব খুশী হয়ে বললেন, "ভারী আনন্দের কথা তো বাবা! তা নাতি না নাতনী, কি হয়েছে?"
gap
রাজীবদা তাড়াতাড়ি বললো, "আরে না না! ওসব কিছু না। আমি আরেকটা বিয়ে করে ফেলেছি।"

এক মাস পর

রোগী এবং ডাক্তারের মধ্যে কথা হচ্ছে। 
gap
ডাক্তার, "এই ঔষধগুলো এখন খেতে থাকুন।। আর ১ মাস পর আবার আসবেন।"
gap
রোগী বেশ চিন্তিতভাবে বললেন, "ডাক্তার বাবু আপনি যে বলছেন ১ মাস পর আসতে, এর মধ্যে যদি আমি মরে যাই?"
gap
ডাক্তার, "তাহলে আর আসবেন না।"

তুমি কি আমায় ভালোবাসো

আমাদের পাশের ফ্ল্যাটের রণি বেশ কিছুদিন ধরে ওর কলেজের সহপাঠী রানির প্রেমে পড়েছে।

একদিন ফুচকা খেতে খেতে রণি খুব রোমান্টিকভাবে জিজ্ঞেস করলো, "ডার্লিং, একটা কথা বলবে? তুমি কি সত্যিই শুধু আমাকেই ভালোবাসো?"

রানি ফুচকার জলটা গিলে নিতে নিতে বললো, "হ্যাঁ গো, শুধুই তোমায়। আমি আমার লিস্টটা চেক করেই বলছি।"

http://bengalijokes.blogspot.com

 

সাক্ষাৎকার

ছাত্র-শিক্ষক

by Mizan Faruk

শিক্ষকঃ কি নাম তোমার?
ছাত্রঃ MP
শিক্ষকঃ মানে কি
ছাত্রঃ মদন পাল
শিক্ষকঃ তোমার বাবার নাম কি?
ছাত্রঃ MP-মানে মোহন পাল স্যার
শিক্ষকঃ শিক্ষাগত যোগ্যতা
ছাত্রঃ MP
শিক্ষকঃ এর মানে আবার কি??
ছাত্রঃ মেট্রিক পাস
শিক্ষকঃ কি কারনে চাকুরি দরকার?
ছাত্রঃ MP-মানি প্রবেলেম
শিক্ষকঃ আপনি এখন আসুন
ছাত্রঃ আমার রেজাল্টটা স্যার??
শিক্ষকঃ MP
ছাত্রঃ মানে স্যার?
শিক্ষকঃ মেন্টালি পাংচার!

ছাত্ত্র এবং

ছাত্র-শিক্ষক, প্রাপ্ত বয়স্ক

by ram das

মহিলা শিক্ষক ইংরেজি ক্লাস
নিচ্ছেন।
মহিলা শিক্ষকঃ সবাই
HAND
দিয়ে একটা sentence লিখ।
যে সবার আগে লিখতে পারবে তার জন্য
আছে পুরস্কার ।

সবার আগে রাজুঃ My penis in
your hand.

মহিলা শিক্ষকঃ এক থাপ্পর
দিয়ে দাত ফেলে দিবো।

এটা কি লিখছো?

রাজুঃ সরি ম্যাডাম,
তাড়াতাড়ি লিখতে গিয়ে pen
আর is এর মাঝে space
দিতে ভুলে গেছি।

১ মিনিট ওয়েট করো

পাঁচমিশালী, রাজনীতি

by Yasin Hossain

লিটল জন পাহাড়ের সর্বোচ্চ চুড়ায় উঠে ইশ্বরকে ডাকাডাকি শুরু করলো…

জনঃ ইশ্বর ও ইশ্বর!!! শুনছো!

ঈশ্বরঃ কি হয়েছে আমার প্রিয় জন?

জনঃ তোমার কাছে ১ কোটি বছর মানে কতক্ষন?

ঈশ্বরঃ আমার কাছে ১ কোটি বছর হলো ১ মিনিট।

জনঃ ও, আচ্ছা তোমার কাছে ১০০০ কোটি টাকা মানে কত পয়সা?

ঈশ্বরঃ ১০০০ কোটি টাকা আমার কাছে তো ১ পয়সারও কম।

জনঃ তাইলে তুমি আমাকে ১টা পয়সা দাওনা। প্লিইইজ।

ঈশ্বরঃ মাত্র ১ পয়সা!! ঠিক আছে বাছা। জাস্ট ১ মিনিট ওয়েট করো।

-এই বলে ইশ্বর অদৃশ্য হলেন।

চাচা-ভাগ্নে

চাচা হুজুর। কিন্তু তার ভাগ্নেটা একদম নামাজ পড়ে না। চাচা ভাগ্নেকে অনেক বুঝালেন। কিছুতেই কাজ হলোনা। শেষমেষ চাচা ভাগ্নেকে বললেন।
: তুই এখন থেকে নামাজ পড়লে তোকে ৫টাকা করে দেব।
ভাগ্নেতো কথা শুনে মহা খুশি। সে খুশিমনে নামাজ পড়তে গেল। নামাজ পড়ে এসে চাচাকে বললো,
: চাচা, নামাজ পড়ে এসেছি। এবার টাকা দাও।
: কিসের টাকা? তু্ই নামাজ পড়ছিস নেকী পাইছিস। তোকে আবার টাকা দেব কেন?
: চাচা, আমি জানতাম তুমি এইরকম করবা। আমিও কম যাইনা। আমি নামাজ ঠিক-ই পড়ছি। কিন্তু ওজু করিনাই।

** কৌতুক : (০১) সাঁতার


এক যুবক নৌবাহিনীর সাক্ষাৎকার দিতে এসেছে।
প্রশ্নকর্তাঃ আপনি কি সাঁতার জানেন?
উত্তরদাতাঃ সাঁতার শেখার সুযোগ হয়ে উঠেনি, স্যার।
প্রশ্নকর্তাঃ তাহলে কি ভেবে আপনি নৌবাহিনীর সাক্ষাৎকার দিতে এসেছেন?
উত্তরদাতাঃ মাফ করবেন, স্যার; তাহলে কি আমি মনে করব যে বিমানবাহিনীর আবেদনকারীরা উড়তে শেখার পর আসে।

**কৌতুক : (০২) গরু


লোক- এই যে, তুমি যে ভিক্ষা চাইছো, কিভাবে বুঝবো যে তুমি কানা?
ভিক্ষুক- এই যে দূরে একটা গরু দেখতাছেন, ওইটা আমি দেখতাছি না।

**কৌতুক : (০৩) অপেক্ষা


ডাক্তার : আপনার কি হয়েছে?
রোগী : ডাক্তার সাহেব আমাকে বাঁচান! আমি মনে হয় ১০মিনিটের মধ্যে মারা যাবো।
ডাক্তার : একটু অপেক্ষা করুন, আমি ২০ মিনিটের মধ্যে ফিরে আসছি।


**কৌতুক : (০৪) ডাক্তার ও রোগী


রোগী : ডাক্তার সাহেব, আমার খুব খারাপ লাগছে। মনে হয় আমি মরে যাবো।
ডাক্তার : কোন চিন্তা করবেন না। ওটা আমার উপর ছেড়ে দিন।


**কৌতুক : (০৫) দাঁত তোলা


এক দাঁতের রোগী ডাক্তারের সঙ্গে ভিজিট নিয়ে তর্ক করছে।
রোগী : একটা দাঁত তোলার জন্য তিনশ টাকা! এটা তো এক মিনিটের কাজ।
ডাক্তার : আপনি চাইলে আমি আরো সময় নিয়ে তুলে দিতে পারি।

 

The above jokes are collected from the below link:

 

http://www.binodon.com/

 

 

 

(Jokes are for entertainment not for humiliating or disgracing or degrading any one. Names are from our imagination. It is compiled and consolidated from different links, not produced by our own). Disclaimer: ain-qanoon.com.


Compiled by: Ahamuduz Zaman, Founder: ain-qanoon.com.

Law Guru

Founder: Ahamuduz Zaman (academician, researcher, author, columnist, lawyer, mentor, human rights activists).

Permanent Address

Vill: Aminnagar (Krishnabati);
P/O: Chanchra, P/S: Kotwali,
District: Jessore, Bangladesh.
Phone: 01552-455241, 01717763964;
E-mail: azamanseu@gmail.com;
info@ ain-qanoon.com;
Web: www.ain-qanoon.com

Present Address

House- 2A, Road-19A,
Sector-11, Uttara,
Dhaka-1230, Bangladesh;
Phone: 01552-455241, 01717763964;
E-mail: azamanseu@gmail.com;
info@ain-qanoon.com;
Web: www.ain-qanoon.com